আজ সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০১৭, ০৭:৩৮ অপরাহ্ন logo

শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৫, ০৩:৪৯ পূর্বাহ্ন

আচমকাই ক্যানসার সারানোর 'দাওয়াই' হাতের মুঠোয়!

স্বাস্থ্য ডেস্ক

জনতার নিউজ২৪ ডটকম :

অতীতেও এমনটা হয়েছে। হৃদরোগের জন্য আবিষ্কৃত ভায়াগ্রা প্রয়োগে বিজ্ঞানীরা দেখেন, পুরুষের যৌন দুর্বলতায় তা দারুণ কাজ দিচ্ছে। অনেকটা সে ভাবেই ম্যালেরিয়া নিয়ে গবেষণা চালাতে গিয়ে, ক্যানসার-মুক্তির পথ খুঁজে পেয়েছে একদল ড্যানিশ গবেষক। অন্তত দাবি তাই। যদি সত্যি তাই হয়, নিঃসন্দেহে ক্যানসারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এটা একটা বড় পদক্ষেপ।

ড্যানিশ এই গবেষকদলের দাবি অনুযায়ী, ম্যালেরিয়ার প্রোটিন ক্যানসারের যম। একদম মোক্ষম দাওয়াই। ক্যানসার কোষকে মারতে, অস্ত্র হিসেবে ম্যালেরিয়া প্রোটিনের প্রয়োগ কার্যকরী হতে পারে। গবেষকদের কথা অনুযায়ী, অকস্মাত্ই তাঁরা ম্যালেরিয়া প্রোটিনের এই ক্ষমাতার কথা জানতে পেরেছেন।

অন্তঃস্ত্ত্বা মহিলাদের কী ভাবে ম্যালেরিয়ার হাত থেকে বাঁচানো যায়, তা নিয়েই গবেষণা চালাচ্ছিলেন ওই বিজ্ঞানীরা। কারণ, ম্যালেরিয়া সরাসরি প্লাসেন্টাকে আক্রমণ করে। ফলে, গর্ভস্থ শিশুকে বাঁচানো মুশকিল হয়ে যায়। এ নিয়ে গবেষণা চালাতে গিয়েই গবেষকদের নজরে পড়ে, ওই ম্যালেরিয়া প্রোটিন একইসঙ্গে ক্যানসার কোষকেও আক্রমণ করে। শুধু আক্রমণই নয়, আক্রান্ত কোষকে মেরেও ফেলে।

গবেষকরা পর্যবেক্ষণ করে দেখেন, ম্যালেরিয়ার প্যারাসাইট নিজেই ক্যানাসার আক্রান্ত কোষের সঙ্গে মিশে গিয়ে, কোষগুলোকে মেরে ফেলে। একই ভাবে প্লাসেন্টাকেও আক্রমণ করে এই পরজীবী।

কানাডার বৃটিশ কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির ক্যানসার গবেষক ম্যাডস ডাউগার্ড জানিয়েছেন, তারা এই ম্যালেরিয়া প্রোটিনটিকে আলাদা করতে সক্ষম হয়েছেন। কার্বোহাইড্রেটের সঙ্গে মেশার পর, টক্সিন তৈরি হয়। ওই প্রোটিন ও টক্সিন যৌথভাবেই ক্যানসার কোষকে ধ্বংস করে ফেলে।– সংবাদসংস্থা