আজ বৃহস্পতিবার, ২০ Jul ২০১৭, ০৬:৩৫ অপরাহ্ন logo

বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০১৫, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন

কর্মীকে খুন করলেন ঘরোয়া রেস্তোরাঁর মালিক

নিজস্ব প্রতিবেদক 

জনতার নিউজ২৪ ডটকম

ঢাকা: টাকা ও মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে হোটেলকর্মী রিয়াজকে (১৭) গুলি করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে মতিঝিলের ঘরোয়া রেস্তোরাঁর মালিক আরিফুল ইসলাম সোহেলের বিরুদ্ধে।

ওয়ারি থানার উপ-পরির্দশক (এসআই) আবদুল খালেক বুধবার সকালে  এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এসআই আবদুল খালেক বলেন, ‘দেড়হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে রেস্তোরাঁর মালিক সোহেল নিজেই তার কর্মী রিয়াজকে গুলি করে হত্যা করে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ছিনতাইকারীর গুলিতে রিয়াজ নিহত হয়েছেন এমন নাটক সাজাতে অন্য কর্মীদের শিখিয়ে দেন রেস্তোরাঁ মালিক। তার শেখানো কথাই পরে হোটেলকর্মীরা গণমাধ্যমকে জানান।’

এসআই জানান, নিহত রিয়াজ ও তার সহকর্মীরা রাজধানীর মতিঝিলের স্বামীবাগের ৭৩ নম্বর মিতালী স্কুলের একটি নিমার্ণাধীন বাসায় একসাথে থাকতেন। ওখানেই তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় হোটেলের ম্যানেজার শফিকে আটক করা হয়েছে।

নিহত রিয়াজের বড় ভাই রিপন  জানান, হোটেল থেকে ২০ থেকে ২২ দিন আগে দেড় হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন চুরি হয়। এ অভিযোগে রিয়াজকে দীর্ঘদিন নির্যাতন করে আসছিলেন সোহেল। মঙ্গলবার বিকালে রেস্তোরাঁর ভেতরে তাকে বেঁধে রেখে নির্যাতন করেন। পরে রাত ১২টার দিকে মালিক নিজে রিয়াজকে তার গাড়িতে করে স্বামীবাগের ওই মেসে নিয়ে যান। সেখানে বিভিন্ন নির্যাতনের পর তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

ঘটনা ধামাচাপা দিতে সোহেলের নির্দেশে নিহতের সহকর্মীরা মঙ্গলবার রাতে জানান, তারা মতিঝিলের ঘরোয়া হোটেলে কাজ করেন। মঙ্গলবার রাতে কাজ শেষে হোটেলের ২ লাখ ২০ হাজার টাকা নিয়ে মালিক আরিফুল ইসলামের শান্তিনগরের পীর সাহেবের গলির বাসায় যাচ্ছিল। এ সময় শাপলা চত্বরে তাদের বহনকারী সিএনজিচালিত অটোরিকশাকে থামার সিগন্যাল দেয় দুর্বৃত্তরা। অটোরিকশাটি না থামলে তারা সিএনজিকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এতে রিয়াজের থুতনিতে গুলি লাগে। আহতাবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

রিয়াজের গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরের হাজিগঞ্জের হাতিলাতে। বাবার নাম মফিজুল ইসলাম। সাড়ে তিন বছর ধরে তিনি ঘরোয়া রেস্তোরাঁয় কাজ করতেন।