আজ সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০১:২৯ পূর্বাহ্ন logo

রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০১৫, ০৬:২৬ পূর্বাহ্ন

‘নতুন বেতন কাঠামোতে কারো সুযোগ কমবে না’

নিজস্ব প্রতিবেদক

জনতার নিউজ২৪ ডটকম

ঢাকা:নতুন বেতন কাঠামোতে কারো সুযোগ কমবে না জানিয়ে অর্থমন্ত্রী আবদুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘যদি আরও ভাল কিছু করা যায় সেটা করাই আমাদের উদ্দেশ্য।’

অর্থ মন্ত্রণালয়ে রবিবার বেতন বৈষম্য দূরীকরণ সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির প্রথম বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। পদাধিকার বলে তিনি এ কমিটির আহ্বায়ক।

গত ৭ সেপ্টেম্বর সামরিক ও বেসামরিক সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নতুন বেতন কাঠামোর অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। নতুন বেতন কাঠামোতে টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড বাতিল করে প্রতি বছর বেতন বৃদ্ধির নতুন পদ্ধতি চালু করার কথা বলা হয়েছে।

টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড বাতিলের কথা শোনার পর পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়, স্কুলের শিক্ষক ও বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড বহাল রাখার দাবিতে আন্দোলনে নামে। তাদের অভিযোগ নিচের দিকে পদোন্নতি কম হয়, এ দু’টি বিষয় বাদ দেওয়া হলে নিচের দিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা স্বতন্ত্র বেতন স্কেলের জন্য বেতন কমিশন গঠনের দাবি তুলেছেন। তাদের অভিযোগ, নতুন বেতন কাঠামোতে সিলেকশন গ্রেড বাদ দিয়ে ও বিশেষ গ্রেড সৃষ্টি করে বেতন-ভাতার দিক থেকে শিক্ষকদের চার ধাপ নিচে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে, এতে শিক্ষকদের মর্যাদার নিচে নামবে।

স্বতন্ত্র বেতন স্কেল বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত ঘোষিত অষ্টম বেতন কাঠামো পুনর্নির্ধারণ করে সিনিয়র অধ্যাপকদের বেতন-ভাতা গ্রেড-১, অধ্যাপকদের গ্রেড-২, সহযোগী অধ্যাপকদের গ্রেড-৩, সহকারী অধ্যাপকদের গ্রেড-৫ ও প্রভাষকদের বেতন কাঠামো সপ্তম গ্রেডে নির্ধারণেরও দাবি জানিয়ে আসছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

অক্টোবর মাসের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে ১ নভেম্বর থেকে লাগাতার কর্মবিরতিতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিল বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন। গত শুক্রবার শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর রবিবার পর্যন্ত লাগাতার কর্মবিরতি সময়সূচি স্থগিত করেছে ফেডারেশন।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর অর্থমন্ত্রীকে আহ্বায়ক করে বেতন বৈষম্য নিরসন কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। কমিটিতে শিল্পমন্ত্রী, বাণিজ্যমন্ত্রী, আইনমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, জনপ্রশাসন মন্ত্রী/প্রতিমন্ত্রী এবং অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী সদস্য হিসেবে রয়েছেন।

এ কমিটিকে জাতীয় বেতন স্কেল বাস্তবায়নের লক্ষ্যে অনিষ্পন্ন মামলাসমূহ পর্যালোচনা ও বেতন স্কেলে অভিযোগের বিষয়ে প্রাপ্ত অভিযোগ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে প্রয়োজনীয় সুপারিশ দিতে বলা হয়েছে। অর্থ বিভাগ এই কমিটিকে সাচিবিক সহায়তা দেবে।