আজ সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:২৮ পূর্বাহ্ন logo

শুক্রবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৫, ০৩:২৭ পূর্বাহ্ন

সাত খুনের ঘটনা নূরের মুখ থেকে শুনতে চাই : বিউটি

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

জনতার নিউজ২৪ ডটকম

নারায়ণগঞ্জঃ নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেনকে আদালতে হাজির করা হবে এমন খবরে সকালেই নিহত দুই পরিবার আদালতে হাজির হয়েছেন। এদের মধ্যে এক পরিবারের পক্ষে নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি অপর পরিবার হলো আইনজীবী চন্দন সরকারের গাড়ির চালক ইব্রাহীমের বৃদ্ধ বাবা ওহাব আলী ও মা নুর জাহান বেগম। তাদের দাবি, সাত খুনের ঘটনা নূর হোসেনের মুখ থেকেই তারা শুনতে চান।

অভিযোগপত্র থেকে অব্যাহতি পাওয়ার পর ওইসব আসামিরা এলাকায় এসে তাদেরকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন নজরুলের স্ত্রী বিউটি। তিনি বলেন, এজাহারভুক্ত আসামি ইকবাল, রাজু এলাকায় এসে অস্ত্র নিয়ে আমাদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। তারা নাকি দেড় কোটি টাকা দিয়ে মামলা থেকে অব্যাহতি নিয়েছে।

এজাহারভুক্ত একজন আসামিকে গ্রেফতার ছাড়াই কীভাবে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয় এমন প্রশ্ন রাখেন স্বামীর মৃত্যুর পর একই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়া সেলিনা ইসলাম বিউটি, যিনি সাত খুন মামলারও বাদী।

বিউটি সাংবাদিকদের জানান, সাত খুনের প্রধান আসামি নূর হোসেনের পাঁচ সহযোগী যারা এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত তাদেরকে চার্জশিট থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। ওইসব আসামিদের চার্জশিটে অন্তর্ভুক্ত করতে চার্জশিটের বিরুদ্ধে নারাজি দেয়া হয়েছিল। ওই নারাজি প্রথমে ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট খারিজ করলে জজ কোর্টে রিভিউশন করি। পরে জজ কোর্টও রিভিউশন খারিজ করেছে। ওই আসামিদের চার্জশিটে অন্তর্ভুক্ত করতে আমরা দ্রুত উচ্চ আদালতে আবেদন করব।

তিনি জানান, চার্জশিট থেকে বাদ দেয়া ওইসব আসামি হলেন- সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন মিয়া, হাসমত আলী হাসু, আমিনুল ইসলাম রাজু, আনোয়ার হোসেন আশিক ও ইকবাল হোসেন।

চাঞ্চল্যকর এই সাত খুনের ১১ মাস পর গত ৮ এপ্রিল মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সংস্থা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) দুটি মামলায় অভিন্ন চার্জশিটে নূর হোসেন, চাকরিচ্যুত সাবেক র‌্যাব কর্মকর্তাসহ ৩৫জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দেয়। তাদের মধ্যে ২২জন গ্রেফতার রয়েছে। নূর হোসেনের গ্রেফতারের পর বাকি ১২ জন এখনো পলাতক।