আজ শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৭:৫৩ অপরাহ্ন logo

রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০১৫, ০৫:২৮ পূর্বাহ্ন

নিজেকে চলচ্চিত্রের হিরো মনে হয় না - নোবেল

আদিল হোসেন নোবেল বাংলা মডেলিং অঙ্গনের সবচেয়ে প্রতিভাবান ও সুর্দশন এক মডেল। ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই অধ্যবসায়, নিষ্ঠা আর আত্মবিশ্বাসের কারণে ব্যক্তিগত জীবন, চাকরি জীবন এবং তারকা জীবন সবক্ষেত্রেই পেয়েছেন ঈর্ষনীয় সাফল্য। বর্তমান ব্যস্ততা নিয়ে তার সঙ্গে কথা বলেছেন সামছুল হুদা-

বর্তমান ব্যস্ততা কি নিয়ে?

আমি তো  নিয়মিত নাটক বা বিজ্ঞাপনে কাজ করি না। বেসরকারি একটি টেলিফোন কোম্পানিতে একটি বিভাগের প্রধান হিসেবে কাজ করি। কাজ নিয়ে প্রচন্ড ব্যস্ত থাকি। ব্যস্ততার ফাঁকে সম্প্রতি মোঃ মেহেদী হাসান জনির পরিচালনায় ”হাইওয়ে” নাটকে কাজ করেছি। অনেক দিন পর অসম্ভব ভালো একটি নাটকে কাজ করা হল।

হাইওয়ে নাটকে আপনার চরিত্রটি কেমন?

হাইওয়ে নাটকে আমি ধ্রুব চরিত্রে অভিনয় করি। আমার সহ অভিনেত্রী হিসেবে অভিনয় করে মৌ। আমি শিল্পপতি বাবার একমাত্র সন্তান। বাবার এতো টাকা পয়সা থাকা সত্ত্বেও তার ব্যবসা দেখা শোনা করতে আমার ভালো লাগেনা। তাই বাসা থেকে পালিয়ে যাই।

কর্পোরেট জগতের পাশাপাশি মিডিয়া জগতের কাজ করতে কোন অসুবিধা হচ্ছে কি?

অসুবিধাতো হয়। সময় সল্পতা হয়ে যায়। সব সময় ম্যানেজ করতে পারি না।

বিশেষ বিশেষ দিবসের নাটক ছাড়া আপনাকে দেখা যায় না কেন?

কর্পোরেট অফিসে কাজ করার কারনে দিনে ১৩ থেকে ১৪ ঘন্টা কাজ করতে হয়। পাশাপাশি ছুটির দিনেও কাজ করতে হয়। তাই বিশেষ দিবস ছাড়া নাটকে কাজ করা হয়ে উঠে না।

আপনাকে চলচ্চিত্রে দেখা না যাওয়ার কারন কি?

চলচ্চিত্রের সাথে আমি আমার নিজের মিল খুজে পাই না। নিজেকে চলচ্চিত্রের হিরো মনে হয়না। তাই চলচ্চিত্রের প্রতি কখনো আগ্রহ করিনি।

মৌ-নোবেল জুটির কাজের অভিজ্ঞতা কেমন?

এটা অনেক বড় অভিজ্ঞতা । অল্প সময়ে বলে শেষ করা যাবে না। এই জুটিটা অনেক লম্বা সময় ধরে কাজ করেছে। তাই এর অভিজ্ঞতাটাও অনেক বড়। আমাদের মতো জুটি হয়ে কাজ খুব কমই হয়েছে। এটা আমাদের জন্য বড় একটা প্রাপ্তি।

নতুনদের সম্পর্কে কিছু বলুন?

নতুনদের মধ্যে অনেকে ভালো কাজ করছে। তারা ঠিকমতো কাজ করলে আরও অনেক ভালো করবে। তারা যখন কাজ করবে, তখন কাজের প্রতি ফোকাস রাখতে হবে। যদি কাজে ফোকাস না রাখে তাহলে তো ভালো করতে পারবে না।