আজ মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:৫৭ অপরাহ্ন logo

শুক্রবার, ১৪ Jul ২০১৭, ০৮:৩১ অপরাহ্ন

সাকিব এখানেও শীর্ষে

ক্রীড়া ডেস্ক,

জনতার নিউজ২৪ ডটকম :ক্রিকেটে গ্রেট খেলোয়াড়ের তকমা পেতে গেলে কী কী লাগে? মূলত ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স। ক্রিকেটের আদি যুগ থেকে এখনও পর্যন্ত সেই তালিকায় খুব বেশি যে খেলোয়াড় আছেন তা কিন্তু নয়। গ্রেট থেকে লিজেন্ড, সেই তালিকাটা তো আরও ছোট। তবে একজন খেলোয়াড় এ দুইয়ের যেটাই পান না কেন, তাকে কুড়ি থেকে ক্রিকেট শুরু করে একসময় মহীরুহতেই পরিণত হতে হয়। তাহলে বলতেই হয়, বাংলাদেশ ক্রিকেটের এখনতক সেরা তারকা সাকিব আল হাসান অন্তত পরিসংখ্যানের খাতায় গ্রেট অলরাউন্ডারদের খাতাতেই নাম তুলে ফেলেছেন। সেটা ক্রিকেটের সেরা মানদণ্ডের টেস্টেই। ক্রিকেটারদের গ্রেট হয়ে ওঠার যত মাপকাঠি তো সাদা পোশাকের ওই পাঁচ দিনের ক্রিকেটেই। এই তো সেদিন ২০০০ সালে বাংলাদেশ পায় টেস্ট মর্যাদা। আর সাকিবের টেস্ট ক্যারিয়ার শুরু ২০০৭ সালে। দেখতে দেখতে ক্যারিয়ারের ১০ বছরে পৌঁছে গেছেন এ অলরাউন্ডার। আইসিসির সর্বশেষ প্রকাশিত টেস্ট, ওয়ানডে এবং টি-টুয়েন্টি-তিন ফরম্যাটেরই র্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ অলরাউন্ডার সাকিব। গত কয়েক বছর ধরে জায়গা তিনটি নিয়মিতই দখল করছেন তিনি। এ অর্জনের মধ্যে দিয়ে অলরাউন্ডারদের রেকর্ডের খাতাতেও নাম তুলেছেন সাকিব এবং তা এক নম্বর হিসেবেই। যে তালিকায় তার পেছনে ক্রিকেটের বেশ কয়েকজন সাবেক গ্রেট অলরাউন্ডারই। টেস্ট ক্রিকেটই তো সবার আগে, যেখানে অলরাউন্ডারদের একটি দুরন্ত রেকর্ডে বাংলাদেশ তারকাই শীর্ষে। আসলে সাকিবের এ রেকর্ডটির কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন ইংল্যান্ড অলরাউন্ডার মইন আলী। যিনি কিছুদিন আগেই লর্ডসে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম টেস্টে দুই হাজার রান ও শত উইকেটের মাইলফলকে পৌঁছান। টেস্টে দ্রুততম দুই হাজার রান ও শত উইকেট দখলের ডাবল অর্জনের তালিকায় মইন নাম লিখিয়েছেন পাঁচ নম্বরে। আর এ তালিকাতেই শীর্ষে সাকিব। মইন ৩৮ টেস্টে পৌঁছান এ রেকর্ডে। আর সেখানে সাকিবের লেগেছে মাত্র ৩১ টেস্ট। বেশ আগেই বাংলাদেশ তারকা পৌঁছেছিলেন এ রেকর্ডে, তবে সেটা প্রচারের আলোয় এলো মইনের কারণেই। এ তালিকায় সাকিবের পেছনে দুই নম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অলরাউন্ডার ট্রেভর গডার্ড। তার লেগেছিল ৩৬ টেস্ট। পরের দুটি নাম ইংল্যান্ডের টনি গ্রেগ ও অস্ট্রেলিয়ার কিথ মিলারের। দুই গ্রেট এ মাইলফলকে পৌঁছেছিলেন ক্যারিয়ারের ৩৭ টেস্টে। এ তালিকায় এমনকি সাকিব পেছনে ফেলেছেন ক্যারিবীয় কিংবদন্তি স্যার গ্যারফিল্ড সোবার্সকেও। যিনি ৪৮ টেস্টে পৌঁছেছিলেন ডাবলে। এ রেকর্ডের আরও কিছু নাম দেখুন। ইংল্যান্ডের ইয়ান বোথাম (৪২ টেস্ট), অ্যান্ড্রু ফ্লিনটফ (৪৩ টেস্ট), উইলফ্রেড রোডস ও ট্রেভর বেইলি (দুজনই ৪৮ টেস্ট)। কাজেই এমন অভিজাত রেকর্ডের তালিকায় নাম তুলে মইন তো এমনি হাসতে হাসতে বলেননি, ‘এ বাগানে আমি তো সোবার্সের চেয়েও ভালো মালি।’ এমন দাবি সাকিবও করতে পারেন বৈকি! সেই রেকর্ড পেরিয়ে সাকিব এখনতক ৪৯ টেস্টে ৪০.৯২ গড়ে করেছেন ৩৪৭৯ রান। সেঞ্চুরি ৫, হাফসেঞ্চুরি ২১। সেরা নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২১৭। পাশাপাশি বাঁহাতি এ স্পিনার টেস্টে ৩৩.০৪ গড়ে নিয়েছেন ১৭৬ উইকেট। ম্যাচসেরা বোলিং ১২৪ রানে ১০ উইকেট।