আজ রবিবার, ২৫ Jun ২০১৭, ১১:৩০ অপরাহ্ন logo

মঙ্গলবার, ৩০ মে ২০১৭, ০১:৫৫ অপরাহ্ন

সিগারেট নিয়ে বিরল চিত্রকর্ম নিলামে

 

নিউজডেস্ক

 

জনতার নিউজ২৪ ডটকম :

 

বিবিসির সৌজন্যইংল্যান্ডের নটিংহ্যাম শহরে ইমপেরিয়াল টোব্যাকোর কারখানাটি গত বছরের মার্চে বন্ধ হয়ে যায়। ওই পাঁচতলা ভবনের দেয়ালে দেয়ালে সিগারেট নিয়ে পুরোনো বিরল নানান তৈলচিত্র ঝোলানো আছে। সেই তৈলচিত্রগুলো এবার নিলামে তোলা হচ্ছে।

 

বিবিসির সৌজন্যএকসময় ইমপেরিয়াল টোব্যাকোর বিজ্ঞাপনে স্থিরচিত্র ব্যবহার করা হতো। কিন্তু মূল ছবিগুলো কখনো প্রদর্শিত হয়নি। আঁকা এসব ছবির বেশ কয়েকটিতে দেখা যাচ্ছে, নারীরা খুব তৃপ্তির সঙ্গে ধূমপান করছেন। এমন ছবিও আঁকা হয়েছে, যেখানে শিশুদের হাতে রয়েছে সিগারেট।

বিবিসির সৌজন্যগত বছর মার্চে নটিংহ্যামের ইমপেরিয়াল টোব্যাকোর কারখানা বন্ধ হয়ে যায়। কারখানার প্রায় ১২০টি ‘শিল্পকর্ম’ বিক্রি করা হবে। নিলামকারীরা বলছেন, কোম্পানির বিজ্ঞাপনের প্রচারের জন্য তৈরি করা এসব বিরল চিত্রকর্ম কখনোই জনসাধারণের জন্য প্রদর্শনের ব্যবস্থা ছিল না।

বিবিসির সৌজন্যআজকাল এমন ছবি বিজ্ঞাপনে দেওয়া তো দূরে থাক, আঁকার কথাও কোনো শিল্পী ভাববেন না। কিন্তু এসব ছবি ইমপেরিয়াল টোব্যাকো ওই সময় প্রায়ই বিজ্ঞাপনে ব্যবহার করেছে। গত শতকের পঞ্চাশের দশকের আগে ধূমপানের স্বাস্থ্যগত ক্ষতি সম্পর্কে মানুষের ধারণা খুব কম ছিল।

বিবিসির সৌজন্যযুক্তরাজ্যের জাদুঘরের পরিচালক (ব্র্যান্ড, প্যাকেজিং এবং বিজ্ঞাপনবিষয়ক) রবার্ট অপি বলেন, ‘দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে সিগারেটের ঝুঁকি সম্পর্কে মানুষের মধ্যে কোনো ধারণা ছিল না।’

বিবিসির সৌজন্যবিশ ও তিরিশের দশকে বড় বড় চলচ্চিত্র তারকা পর্দায় সিগারেট খেতেন এবং তাদের দেখাদেখি নারী-পুরুষ তাদের মর্যাদা বাড়াতে ধূমপানে আকৃষ্ট করত। ‘ওই সময়ে সুন্দরী নারী থেকে শুরু করে খেলার জগতের তারকা, এমনকি শিশুদেরও সিগারেটের বিজ্ঞাপনে ব্যবহার করা হতো। কাস্টার্ড, টফি বা বিস্কুটের বিজ্ঞাপনে যেমন ব্যবহার করা হতো, সিগারেটের ক্ষেত্রেও হতো’ জানান তিনি।

বিবিসির সৌজন্যতিরিশের দশকে ইমপেরিয়াল টোব্যাকো দিনে ১০ লাখের বেশি সিগারেট বানাতো। প্রায় সাত হাজার লোক কাজ করতেন তাদের কারখানায়। দশকের পর দশক ধরে ইমপেরিয়াল নটিংহ্যাম শহরের কর্মসংস্থানের জন্য বড় একটি জায়গা ছিল। এই কারাখানাটি যখন বন্ধ হয়ে যায়, তখন প্রায় ৫০০ লোক চাকরি হারান। সিগারেট নিয়ে আঁকা দুর্লভ এসব ছবির দাম কত উঠতে পারে, তা এখনো জানানো হয়নি।

স্টাফোর্ডশায়ারের ‘মার্চিংটন সাইটে’ ও ট্রেন্ট ব্রিজ ক্রিকেট গ্রাউন্ডে সোমবার থেকেই আগামী ৬ জুন পর্যন্ত ওই ছবিগুলো সাধারণ মানুষ দেখতে পাবে। ১৪ জুন অনলাইনের নিলাম শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত এ সুবিধা থাকছে।