বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে আবুধাবীতে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে আবুধাবীতে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

সংযুক্ত আরব আমিরাতে রাজধানী আবুধাবীস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস নানা আয়োজনে মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতীয় দিবস উদযাপন করেছে। শুক্রবার সকালে দূতাবাস প্রঙ্গণে সবার অংশগ্রহণে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। অতঃপর রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফর দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, আবুধাবীস্থ জনতা ব্যাংক, বাংলাদেশ বিমান এবং আবুধাবীস্থ বাংলাদেশ স্কুল, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, বাংলাদেশ সমিতিসহ স্থানীয় বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

পরে দূতাবাস মিলনায়তনে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফরের সভাপতিত্বে ও লেবার কাউন্সিলর মোহাম্মদ আবদুল আলিম মিয়ার পরিচালনায় স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন দূতাবাস উপ-প্রধান মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, লেবার কাউন্সিলর মোহাম্মদ আবদুল আলিম মিয়া  কাউন্সিলর রিয়াজুল হক, দূতাবাস সচিব লুৎফর নাহার নাজিম।

বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ আবুধাবীর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব ইফতেখার হোসেন বাবুল, বাংলাদেশ সমিতি আবুধাবীর সভাপতি প্রকৌশলী মোয়াজ্জম হোসেন, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সিনিয়র সহ সভাপতি ইমরাদ হোসেন ইমু, সহ সভাপতি শওকত আকবর, সাধারণ সম্পাদক নাছির তালুকদার, যুগ্ম সম্পাদক গোলাম কাদের ইফতি, মুক্তিযাদ্ধাদের পক্ষে নজরুল ইসলাম, জনতা ব্যাংকের সিইও আমিনুল হক বিমানের রিজোনাল ম্যানেজার আব্দুল্লাহ আল হোসেন, যুবলীগের জাকির হোসেন জসিম, আল আইন বঙ্গবন্ধু পরিষদের উপদেষ্টা শেখ ফরিদ সি আই পি, প্রজন্ম বঙ্গবন্ধুর সভাপতি এস এম রফিকুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের সভাপতি শেখ রহুল আমিন, সাইফুন নাহার জলি প্রমুখ।

রাষ্ট্রদূত তাঁর বক্তব্যে জাতির পিতার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে তাঁর অবদান কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি সকল মুক্তিযোদ্ধা, বীরঙ্গনাসহ আমাদের স্বাধীনতা অর্জনে যারা অবদান রেখেছেন তাদের অবদান কৃতজ্ঞতাচিত্তে স্মরণ করেন। রাষ্ট্যদূত বলেন, সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার যে স্বপ্ন নিয়ে বঙ্গবন্ধু আজীবন সংগ্রাম করেছেন, যে চেতনায় উজ্জীবিত প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ  উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা অর্জন, কভিড-১৯ সংকট অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে মোকাবেলাসহ সরকারের সফলতার বিভিন্ন দিক তিনি তুলে ধরেন। তিনি আগামী জুন মাস নাগাদ আবুধাবীস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস ও কনসুলেটে ই-পাসপোর্ট বিতরণের কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানান।

অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম ’৭১ এর রণাঙ্গনের বীরগাঁথা বর্ণনা করে বর্তমান সরকার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যে বিশেষ সম্মান ও সহয়তা প্রদান করছে এ জন্য তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

দিবসটি উপলক্ষে সংযুক্ত আরব আমিরতের অন্যতম প্রধান ইংরেজি দৈনিক খালিজ টাইমসে বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হয়।

সবশেষে জাতির পিতাসহ মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত ও দেশের উন্নয়ন কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতের মাধ্যমে সভার সমাপ্তি হয়।

Top 8 প্রবাস